স্কুল শিক্ষিকা হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার দাবিতে মানববন্ধন

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি

স্কুুল শিক্ষিকা লতিফা হেলেন হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকরা। বুধবার বেলা ১১টার দিকে গুরুদাসপুর শহীদ মিনার চত্বরে ওই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। মানববন্ধনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণি পেশার শত শত মানুষ অংশ নেন। গুরুদাসপুর শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রধান শিক্ষক মো. এমদাদুল হক অভিযোগ করেন, দুই বছর অতিবাহিত হলেও এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শেষ হয়নি। মামলাটি বর্তমানে পিবিআইয়ের তদন্তাধীন। তবে মূল সন্দেহভাজন বাইজিদ ইসলাম সোহাগ উচ্চ পদস্থ এক কর্মকর্তার আত্মীয় হওয়ায় তাকে সেই তদন্তেরও বাইরে রাখা হয়েছে। এই মানববন্ধনের মাধ্যমে আমরা পলাতক আসামি আহসান ও মূল সন্দেহভাজন বাইজিদ ইসলাম সোহাগকে গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।

নাটোর পিবিআই পুলিশের পরিদর্শক মো. নাসির উদ্দিন জানান, মামলার উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ করা হবে।
উল্লেখ্য, নিহত শিক্ষক লতিফা হেলেন গুরুদাসপুর উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামের মৃত নজিমউদ্দিনের মেয়ে। তিনি বৃ-কাশো সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ছিলেন। ২০১৯ সালের ২৩ জুলাই রাতে লতিফাকে তার শয়ন ঘরের বারান্দায় ধর্ষণের পর কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরে পাশের পুকুর থেকে বিবস্ত্র অবস্থায় ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় অভিযুক্ত সোহাগের টর্চ লাইট এবং মমিনুলের ব্যবহৃত গামছা পাওয়া যায়।