বাড়ি বিভাগ ঢাকা মানিকগঞ্জের ব্রীজ থাকলেও নেই সংযোগ রাস্তা

মানিকগঞ্জের ব্রীজ থাকলেও নেই সংযোগ রাস্তা

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার ধামশ্বর খালে উপর ব্রীজ থাকলেও নেই সংযোগ রাস্তা। দীর্ঘদিনের সংযোগ রাস্তায় মাটি না ফেলার কারণে ভোগান্তির স্বীকার হয়েছে এলাকাবাসী।

জানা গেছে, প্রায় দুই যুগ আগে ধামশ্বর ইউনিয়নে ৩টি ব্রীজ নির্মাণ করে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)। দীর্ঘদিন পরেও ব্যবহারের উপযোগী হয়নি নির্মিত ব্রীজগুলো।

সরকারের মোটা অংকের ব্যয়ে ব্রীজগুলো নির্মাণ করা হলেও জনস্বার্থে কোন উপকারে আসছে না। প্রায় ২০/২৫টি গ্রামের লোকজনের যাতায়াতের জন্য ব্রীজগুলো নির্মাণ করা হলেও এখন পর্যন্ত এর সুফল পাচ্ছে না এলাকাবাসী।

দৌলতপুর উপজেলার ধামশ্বর, কলিয়া পয়লা, ও সিংজুরি ইউনিয়ন সহ আশপাশের এলাকার জনগণ কৃষিকাজে উপর নির্ভরশীল। দীর্ঘদিনের নির্মিত ব্রীজগুলোর সংযোগ রাস্তা না থাকায় কৃষি পন্য সরবরাহে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এসব এলাকার কৃষকদের। ওই এলাকার জনগণের কাঙ্ক্ষিত স্বপ্নের ব্রীজের সংযোগ রাস্তা না থাকায় আধুনিক যানবাহন চলাচল করতে না পারায় ঘোড়ার গাড়ী করে উৎপাদিত কৃষি পণ্য হাট বাজারে আনা নেয়া করা হয়। এতে কৃষকের ব্যয়বহুল খরচ হচ্ছে, অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত ব্রীজগুলো এখন কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। ব্রীজ নির্মাণ হলেও রাস্তা না থাকায় সারা বছর ও প্রাকৃতিক বন্যায় এবং সামান্য বৃষ্টিতেই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। যার ফলে মাইলের পর মাইল ঘুরে যাতায়াত করতে হয় ২০/২৫টি গ্রামের মানুষকে।

কাকনা গ্রামের আব্দুস সালাম বলেন, ব্রীজগুলো নির্মাণ হলেও এর কোন সুফল পাচ্ছি না। ব্রীজের সংযোগ রাস্তা না থাকায় কয়েক মাইল ঘুরে মানিকগঞ্জ জেলা শহরে যেতে হয় ও সাটুরিয়া উপজেলার ঘিওর বাজার, দড়গ্রাম বাজার অনেক কষ্টে যাতায়াত করতে হয়।

দৌলতপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো. ইশতিয়াক হাসান বলেন, দীর্ঘদিন পূর্বে নির্মিত অপরিকল্পিত এসব ব্রীজগুলো চলাচলের উপযোগী করতে এলজিইডি’র প্রধান কার্যালয়ে প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম রাজা বলেন, অপরিকল্পিত ভাবে ব্রীজগুলো নির্মাণ করা হয়েছিল। এলাকাবাসীর দুর্ভোগ নিরসনে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে।