মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, অধিকাংশের মুখে মাস্ক নেই

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে পক্ষে থেকে বলা হয়েছে, দলগতভাবে সর্বোচ্চ পাঁচজন এবং ব্যক্তিপর্যায়ে সর্বোচ্চ দুই জনের শ্রদ্ধা নিবেদন করতে পারবেন। কিন্তু সে নির্দেশনা জারি করেছে তা মানছে না কেউই। ১২ টা ৩০ মিনিটে সর্বস্তরের মানুষের জন্য খুলে দেওয়া পরপরই সেখানে নামে মানুষের ঢল।

সরেজমিনে দেখা যায়, সাধারণ মানুষসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সংগঠনের ব্যানারে দল বেধে এসে শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন। সামাজিক দূরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করতে দেখা গেছে প্রায় সবাইকে। দল বেধে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসা অধিকাংশের মুখে নেই মাস্ক। নিরূপায় হয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে দায়িত্বরত বিএনসিসি সদস্যদের। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা কাউকে নিষেধ করছেন না।

স্বাস্থ্যবিধির মানার বিষয়ে জানতে চাইলে, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করে আসা শিক্ষকরা জানান, আসলে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় এভাবে দুই/ চারজন আসা যায় না। স্বাস্থ্যঝুঁকি থাকলেও বাংলার বীর সন্তানদের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য ঝুঁকি মনে হচ্ছে না।

ঢাকা মহানাগর হোটেল রেস্তোরাঁ সমিতির ব্যানারে এসেছেন ১৫/২০ জনের একটি দল। তাদের মধ্যে শফিকুল ইসলাম বলেন, আজ শ্রদ্ধা নিবেদনের দিন। এতকিছু ভেবে চললে হবে না। একটু ঝুঁকি থাকবেই।