বাঘায় বিদেশী পিস্তল এবং দেশীয় অস্ত্রসহ দু’জন আটক

বাঘা(রাজশাহী) প্রতিনিধি

রাজশাহীর বাঘায় বিদেশী পিস্তল এবং দেশীয় ধারালো আস্ত্রসহ দুই ব্যাক্তিকে আটক করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার (১৫ জুন) উপজেলার করারী নওশারা হবির চরের কাঁচা রাস্তা সংলগ্ন উত্তর এলাকা থেকে সিপিসি ২-নাটোর ক্যাম্প ও রাজশাহী র‌্যাব-৫ এর যৌথ অভিযানে তাদেরকে আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলো করারী নওশারা হবির চর এলাকার খোরশেদ মন্ডলের ছেলে একরামুল মন্ডল (৩২) এবং উম্মত মন্ডলের ছেলে সাহাজুল মন্ডল (২৫)। এ ঘটনায় বুধবার সকালে বাঘায় থানায় র‌্যাবের পক্ষ থেকে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
অভিযোগে জানা গেছে, সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্প এবং রাজশাহী র‌্যাব-৫ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যৌথ অভিযান চালিয়ে ধুত দুই আসামীর বাড়ি থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন এবং প্রায় চারফিট সাইজের একটি দেশীয় অস্ত্র হাসুয়া উদ্ধার করে। র‌্যাব জানায় আটককৃতরা এলাকার অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী। জব্দকৃত অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র ও হাসুয়া দিয়ে তারা দীর্ঘদিন যাবত এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে আসছিল। তাদের সাথে আরো বেশ কিছু সাঙ্গ-পাঙ্গ রয়েছে।
স্থানীয় লোকজনের ভাষ্য,এক সময় নাটোরের লালপুর, কুষ্টিয়ার দৌলতপুর এবং রাজশাহীর বাঘা এই তিন জেলার শেষ সীমানা পদ্মার চরাঞ্চলে মানুষের বাড়ীর-হালের গরু ও মহিষসহ ফসল লুট এবং এক বছরে ২০ টি হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটিয়ে আলোচিত হয় লালচাঁন ও পান্না বাহিনী। পরবর্তীতে তত্বাবধায়ক সরকার আমালে র‌্যাব এবং পুলিশের যৌথ অভিযানে দুই বাহিনির প্রধান সহ চারজন সন্ত্রাসী বন্ধুক যুদ্ধে মারা যায়। এরপর থেকে তাদের ডাকাতি কার্যক্রম থেমে গেলেও অনেকেই এখন পর্যন্ত আত্ন গোপনে রয়েছেন। এই মুহুর্তে যাদের আটক করা হয়েছে তারা ঐ বাহিনীর সদস্য এবং তাদের নামে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে লোকজন উল্লেখ করেন।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে র্যাব বাদি হয়ে আগ্নেয়াস্ত্র মামলা রুজু করেছে। আসামীদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।