বাড়ি গ্রামবাংলা নীলফামারীতে লেভেলক্রসিং যেন মৃত্যুফাঁদ! এক বছরে ২০ জনের প্রাণহানি

নীলফামারীতে লেভেলক্রসিং যেন মৃত্যুফাঁদ! এক বছরে ২০ জনের প্রাণহানি

নীলফামারীর অরক্ষিত লেভেলক্রসিং যেন মৃত্যুফাঁদ

নীলফামারী প্রতিনিধি

অরক্ষিত লেভেলক্রসিংয়ের কারণে এক বছরে নীলফামারীতে রেল দুর্ঘটনায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশার প্রায় ২০ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুফাঁদে পরিণত অরক্ষিত লেভেলক্রসিংগুলোয় প্রতিরোধের কোনো উদ্যোগ নেই। দীর্ঘদিন ধরে অরক্ষিত লেভেলক্রসিংয়ে গেট ও গেটকিপার দেয়ার দাবি জানিয়ে আসছেন এলাকাবাসী। কিন্তু কোনো ফল পাওয়া যায়নি।
অভিযোগ রয়েছে, এক বছরে এ রেলপথের চিলাহাটি থেকে সৈয়দপুর পর্যন্ত যতগুলো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে, এসবের ৯০ ভাগই অরক্ষিত লেভেলক্রসিংয়ের কারণে। স্থানীয়রা মনে করেন, লেভেলক্রসিং অরক্ষিত এবং গেট ও গেটকিপার না থাকার কারণেই ঘটছে দুর্ঘটনা। রেলকর্তৃপক্ষ বলছে, অসাবধানতা ও অসচেতনতার কারণেই বাড়ছে এসব দুর্ঘটনা।
রেলওয়ে সূত্র জানা যায়, চিলাহাটি থেকে সৈয়দপুর ৫৯ কিলোমিটার রেলপথ। এই পথে মোট লেভেল ক্রসিংয়ের সংখ্যা ৩৬টি। এর মধ্যে ২৫টি ক্রসিংয়েই নেই কোন গেইটম্যান। এসব লেভেলক্রসিংয়ের পাশেই রয়েছে স্কুল হাট-বাজার ও গ্রামের প্রধান রাস্তা। দৈনিক এ রুটে চলাচল করে একটি লোকাল মেইল ট্রেনসহ ৬টি আন্তঃনগর ট্রেন। পাশাপাশি চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ চালু হওয়ায় এ পথে বেড়েছে পণ্যবাহী ট্রেনের সংখ্যা। ফলে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে গিয়ে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। এদিকে সতর্কীকরণ সাইনবোর্ড দিয়ে দায় এড়ানোর চেষ্টা করছে রেল কর্তৃপক্ষ।
সর্বশেষ গত ২৪ আগস্ট নীলফামারীর ডোমার উপজেলার কাজীরহাট অরক্ষিত লেভেলক্রসিং অরক্ষিত থাকার কারণে ট্রেন-ট্রাকের দুর্ঘটনাটি ঘটে। এতে ট্রাক চালক ঘটনাস্থলে নিহত হন আর আহত হন দুইজন। এ ছাড়া খয়রাতনগরের রেলস্টেশনের সন্নিকটের লেভেলক্রসিংয়ে গেটম্যান না থাকায় গত দু’বছরে অন্তত ৫/৬টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে উত্তরা ইপিজেডের মোটরসাইকেল আরোহী ৩ জন শ্রমিক মারা গেছে। এছাড়া সম্প্রতি ওয়াপদা মোড় সংলগ্ন বাইপাসে লেভেল ক্রসিংয়ে পুলিশের সহায়তা রক্ষা হয়েছে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
সৈয়দপুর রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহমান বিশ্বাস বলেন, অসচেতনভাবে রেললাইন পার হওয়ার সময় ঘটছে দুর্ঘটনা। মানুষ সচেতন হলে দুর্ঘটনা অনেকটা কমে আসবে এ লক্ষ্যে রেলপথের লেভেল ক্রসিংয়ে ও বিভিন্ন স্টেশনে সচেতনতামূলক সভা করছি, যাতে মানুষজন লেভেলক্রসিং পারাপারে সতর্ক হয়।
সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার উর্ধতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুলতান মৃধা