জোয়ারে সড়ক ও গ্যাংওয়ে ডুবে ফেরি পারাপার বিঘ্নিত মোরেলগঞ্জে পানগুছি নদী

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার পানগুছি নদীর পশ্চিম পাড়ের ফেরির পন্টুনের সংযোগ সড়কসহ গ্যাংওয়ে  পানিতে ডুবে জনসাধারণে চলাচলে চরম দুভোগ

সড়ক ও জনপথ বিভাগ বাগেরহাট নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, স্বাভাবিক জোয়ারে পল্টুন সংলগ্ন সংযোগ রাস্তায় পানি না উঠলেও অমাবশ্যা ও পূর্ণিমার তিথিতে রাস্তা প্লাবিত হয়। তবে এ রাস্তা যাতে প্লাবিত না হয় শীঘ্রই সে ব্যবস্থা করা হবে।

মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার পানগুছি নদীর পশ্চিম পাড়ের ফেরির পন্টুনের সংযোগ সড়কসহ গ্যাংওয়ে  পানিতে ডুবে যাওয়ায় ফেরি পারাপারে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা।

শরণখোলা-মোরেলগঞ্জ-বাগেরহাট মহাসড়কের মধ্যবর্তী পানগুছি নদীর ফেরিটি এই অঞ্চলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতে যাতায়াতের জন্য প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মোরেলগঞ্জের পানগুছি নদীর এ ফেরিটি ব্যবহার করেন। বিশেষ করে মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা থেকে প্রতিদিন অনেক যাত্রীবাহী পরিবহন ঢাকা ও চট্রগামে যাতায়াত করে। তাছাড়া হাজার হাজার মোটর সাইকেল, ভ্যান, ট্রাক, যাত্রীবাহী বাস, বিআরটিসি বাস, রোগী বহনকারী এ্যাম্বুলেন্স এই ফেরি ব্যবহার করে। নদীর নাব্যতা হ্রাস পাওয়ায় স্বাভাবিক জোয়ারে মহাসড়কের সাথে পশ্চিম পাড়ের পল্টুনের সংযোগ সড়ক ও গ্যাংওয়ে ডুবে যায়। অমাবশ্যা ও পূর্ণিমার তিথিতে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ২/৩ ফুট পানি বেড়ে গেলে উভয় পাড়ে এ সমস্যার সৃষ্টি হয়। বুধবার সরেজমিনে দেখা গেছে, গত তিনদিনের অমাবশ্যার তিথিতে জোয়ারের পানিতে পশ্চিম পাড়ের পন্টুনের সংযোগ সড়ক ডুবে গেছে। মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পন্টুনে উঠছে। মহিলা ও শিশুরা ভিজে কিংবা ভ্যানে করে পন্টুনে উঠতে বাধ্য হয়।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ বাগেরহাট নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, স্বাভাবিক জোয়ারে পল্টুন সংলগ্ন সংযোগ রাস্তায় পানি না উঠলেও অমাবশ্যা ও পূর্ণিমার তিথিতে রাস্তা প্লাবিত হয়। তবে এ রাস্তা যাতে প্লাবিত না হয় শীঘ্রই সে ব্যবস্থা করা হবে।