জুমার নামাজে যাননি ক্রিকেটাররা, মুশফিকের ছবি নিয়ে বিভ্রান্তি

নিজস্ব প্রতিনিধি

একে তো করোনা ভাইরাসের প্রকোপ। এরপর শুক্রবার রাতে হয়েছে ভূমিকম্প, এর আগে আবার ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে আবারো হামলার হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। সব মিলিয়ে ঘরের বাইরে বেরোনোই মুশকিল হয়ে পড়েছে নিউজিল্যান্ড সফররত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। এরই মধ্যে উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি দিয়েছেন সেই মসজিদের সামনে গিয়ে। এতে ছড়িয়ে পড়েছে বিভ্রান্তি।

খেলোয়াড়দের কোয়ারেন্টাইন এখনো শেষ হয়নি। সাত দিন অতিবাহিত হওয়ায় আগের মতো ২৩ ঘণ্টাই রুমে বসে কাটাতে হয় না তামিম-ইকবালদের। বাইরে খোলা বাতাসে থাকার সময়টা এখন এক ঘণ্টা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে পাঁচ ঘণ্টায়। তারপরও অবশ্য কোয়ারেন্টাইন বিধিতে মসজিদে গিয়ে নামাজের সুযোগটা নেই দলের।

তারপরও মুশফিক শুক্রবার সকালে ব্যক্তিগত ফেসবুক পাতায় একটি ছবি দিয়েছেন যেখানে তিনি ছিলেন সেই মসজিদের সামনে। তাতেই ছড়িয়ে পড়ে বিভ্রান্তি। মুশফিকরা কি তবে সেই মসজিদেই নামাজ পড়তে গিয়েছেন? যখন চারিদিকে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ, আছে সন্ত্রাসী হামলার হুমকি, ভূমিকম্প-সুনামির চোখ রাঙানিও আছে বেশ। এমন প্রতিকূল পরিবেশেও?

বাংলাদেশের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমেও ধারণা করা হচ্ছিল, নামাজেই গিয়েছেন ক্রিকেটাররা। দুয়েকটা সংবাদ মাধ্যমে খবরও প্রচারিত হয়েছে। তবে তেমন কিছু আদৌ হয়নি, জানালেন বিসিবির এক পরিচালক। ইত্তেহাদকে তিনি বলেন, ‘নো ওয়ে! কোনও উপায়ই নেই। আমরা তো এখানে কোরেন্টাইনে আছি। অনুশীলন আর জিম ছাড়া ১৪ দিনের আগে এখান থেকে আমরা বের হবো কিভাবে? মসজিদে যাওয়ার তো প্রশ্নই আসে না।’

তাহলে মুশফিকের ছবি এলো কীভাবে? দলের আরেক সদস্যের ব্যাখ্যা, ‘সেটা হতে পারে পুরনো ছবি। ইত্তেহাদকে তিনি বললেন, ‘আমি যতটুকু জানি কোনও সুযোগই নেই। আমরা তো এখানে একটি প্রক্রিয়ার মধ্যে আছি। অনুশীলনে গেলেও মসজিদের সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তোলার মতো সময় তারা পাবে না। রানিংয়ে থাকতে হয়। হতে পারে না আগের ছবি? কিংবা যেকোনোভাবে তোলা হয়েছে?’

ক্রাইস্টচার্চে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন শেষ করে বাংলাদেশ দল ১৫ তারিখের আগেই ড্যানেডিন চলে যাবে। সেখানেই হবে প্রথম ওয়ানডে। এরপর তামিম-ইকবালের দল আবারো ক্রাইস্টচার্চ ফিরবে আগামী ২০ মার্চ।