উদ্বোধনের তিন বছরেই নতুন ভবনে ফাটল!

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নতুন ভবনটিতে তিন বছরের মাথায় ২য় ও ৩য় তলার বেশ কয়েকটি স্থানে শতাধিক ফাটল দেখা দিয়েছে। ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই ভবনে অসংখ্য ফাটল দেখা দেয়ায় নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। এতে আতঙ্কে রয়েছেন ডাক্তার, নার্সসহ আগত রোগীরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে ৩১ থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নতুন তিন তলা ভবনের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করা হয়। ভবনটি ৮ কোটি ৩২ লাখ ৬ হাজার ৭০১ টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (এইচইডি) এই ভবন নির্মাণের কাজটি করে। কাজটি সমাপ্তের পর ২০১৮ সালের ১০ মার্চ উদ্বোধন করা হয়। সোমবার সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভবন উদ্বোধনের তিন বছরের মাথায় এর ২য় ও ৩য় তলায় পিলার, ভিম ওয়াল ও ফ্লোরের টাইলসসহ প্রায় শতাধিক স্থানে ফাটল ও চিড় ধরেছে। পলেস্তারা খসে পড়ছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতা মোহাম্মদ মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া জানান, যে সময় ভবনের কাজ হয়েছিল সে সময় আমি এখানে কর্মরত ছিলাম না। ভবনের ফাটলে বিষয়টি উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। মৌলভীবাজারের সিভিল সার্জন ডা. চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুর্শেদ জানান, নতুন ভবনের ফাটলের বিষয়টি অবগত হয়েছি। স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের নিয়ে ফাটল ও ঝুঁকিপূর্ণ ওয়াল পরিদর্শন করে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। মৌলভীবাজার স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, নতুন ভবনের ফাটলের বিষয়টি অবগত হয়েছেন। তদন্ত সাপেক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নতুন ভবন নির্মাণের সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুই তলা বিশিষ্ট পুরাতন ভবনেরও সংস্কার করা হয়। এই সংস্কার কাজে ব্যয় হয়েছিল ৮০ লাখ টাকা। কিন্তু এখন পুরাতন ভবনেরও বিভিন্ন স্থানে ছাদের প্লাস্টার খসে পড়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কক্ষ, পরিসংখ্যান কর্মকর্তার কক্ষ, জরুরি বিভাগ ও রোগীদের থাকার ওয়ার্ডের ছাদের প্লাস্টার খসে পড়েছে। সিলেট বিভাগ উচ্চ ভূমিকম্প প্রবণ এলাকা হওয়ার কারণে দুর্ঘটনার আশংঙ্কায় আতঙ্কে আছেন হাসপাতালের চিকিত্সক, নার্স ও রোগীরা।

মৌলভীবাজার স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, নতুন ভবনের ফাটলের বিষয়টি অবগত হয়েছেন। তদন্ত সাপেক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে