আরএমপিতে ‘পুলিশ কোভিড অক্সিজেন ব্যাংক’ উদ্বোধন

 রাজশাহী প্রতিনিধি
সাধারণ জনগণ এবং দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য সহ বিভিন্ন পেশাজীবী কোভিড আক্রান্ত রোগীদের আরএমপি’র পক্ষ থেকে বিনা মূল্যে অক্সিজেন দেওয়ার লক্ষে আজ মঙ্গলবার (১৫ জুন) রাজশাহী মেট্টোপলিটন পুলিশে (আরএমপি) ৫০টি অক্সিজেন সিলিল্ডার দিয়ে গঠিত ‘পুলিশ কোভিড অক্সিজেন ব্যাংক’ উদ্বোধন করা হয়েছে। এদিন দুপুর ১২টায় আরএমপির কমিশনার মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক প্রধান অতিথি হিসেবে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।
এ উপলক্ষ্যে আরএমপি’র সদরদপ্তর, শাহ্ মখদুম থানা প্রাঙ্গনে আরএমপি কমিশনার উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, হাসপাতালে অক্সিজেন অবকাঠামোগত প্রতিবন্ধকতায় অনেক সময় অক্সিজেনের স্বল্পতা দেখা দেয়। এছাড়া অনেকের বাসায় অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়। বিভিন্ন কারণে তারা অক্সিজেন সংগ্রহ করতে পারেন না। এসব দিক ও মানবিক বিবেচনায় কোভিড রোগীদের জীবণ রক্ষায় আরএমপি এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কারণ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণের মতে করোনার সেকেন্ড ওয়েভ-এ আক্রান্ত রোগীদের প্রথম থেকেই শ্বাস কষ্টে অক্সিজেনের অভাব দেখা দেয়। এ সংকট থেকে সাধারণ জনগণ এবং দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য সহ বিভিন্ন পেশাজীবী কোভিড রোগীদের আরএমপি’র পক্ষ থেকে বিনামূল্যে অক্সিজেন সরবরাহের লক্ষ্যে ৫০টি অক্সিজেন সিলিল্ডার দিয়ে এ কার্যক্রমের যাত্রা শুরু হলো। দুই-এক দিনের মধ্যেই এ সংখ্যা একশ’তে উন্নীত করা হবে। পর্যায়ক্রমে প্রয়োজন অনুসারে আরো অক্সিজেন সিলিন্ডার সংযোজন করা হবে। তিনি আরো বলেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাপসাতাল ব্যতীত রাজশাহীর অন্য কোনো হাসপাতাল ও ক্লিনিকে সেন্ট্রাল অক্সিজেন নেই। হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিস্টেম চালু করতে সময় লাগবে অন্তত পক্ষে ২ থেকে ৩ মাস। তাই কেউ কোভিডে শ্বাসকষ্টে ভুগছেন এমন সংবাদ আরএমপি’র কন্ট্রোল রুমের মোবাইল নং-০১৩২০-০৬৩৯৯৮-এ জানালে আরএমপি‘র পক্ষ থেকে বাড়িতে গিয়ে সংশ্লিষ্টরা অক্সিজেন সিলিন্ডার বিনামূল্যে সরবরাহ করবে বলেও জানান পুলিশ কমিশনার।
এসময় আরএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন) মোঃ সুজায়েত ইসলাম, অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) মোঃ মজিদ আলী, উপ-কমিশনার (সদর) মোঃ রশীদুল হাসান ও উপ-কমিশনার (বোয়ালিয়া) মোঃ সাজিদ হোসেনসহ আরএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, কনস্টবল, এএসআই, এসআই ও ইন্সপেক্টর পদ মর্যাদার ১০ জনকে নিয়ে প্রাথমিক পর্যায়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার ব্যবহার, সিলিন্ডার স্পিড মাত্রা নির্ধারণ, রিফিল ইত্যাদি রপ্ত করানো হয়েছে। প্রয়োজনে এ সংখ্যা আরও বাড়ানো এবং ট্রেনিং দেয়া হবে। যেকোন স্বেচ্ছাসেবক প্রতিষ্ঠানের সদস্যও ফ্রি আরএমপিতে এই কাজের ট্রেনিং নিতে পারবেন।